আমার আনন্দ
| |

অনুচ্ছেদঃ আমার আনন্দ

আজকের পোস্টে আমরা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অনুচ্ছেদ শেয়ার করব “আমার আনন্দ“। এই অনুচ্ছেদটি আশা করি তোমাদের পরীক্ষায় কমন আসবে। আমরা এই অনুচ্ছেদটি যত সম্ভব সহজ রাখার চেষ্টা করেছি – তোমাদের পড়তে সুবিধা হবে। চলো শুরু করা যাক।

আমার আনন্দ

আনন্দ একটি আপেক্ষিক বিষয়। ব্যক্তিবিশেষে আনন্দ লাভের ধরন আলাদা। কেউ আনন্দ পায় খেলাধুলা করে, কেউ ভ্রমণ করে, আবার কেউবা আনন্দ পায় বই পড়ে। আমি আনন্দ পাই বই পড়ে। এজন্য অবসর হলেই আমি বই পড়ি। আমার সংগ্রহে অনেক ধরনের বই রয়েছে। ছোটগল্প, প্রবন্ধ, নাটক, কবিতা, ছড়া ইত্যাদি বই আমি সুযোগ পেলেই পড়ে ফেলি। তবে আমার সবচেয়ে ভালো লাগে গল্পের বই পড়তে। এগুলো পড়তে গিয়ে আমি গল্পের চরিত্রগুলোর মাঝে হারিয়ে যাই। বই পড়তে আমার খুব ভালো লাগে বলে প্রতিবছর বইমেলা থেকে আমি অনেক বই কিনি । আমার বই পড়ার আগ্রহের বিষয়টি বাবা জানেন । তাই তিনি মাঝেমধ্যেই আমাকে বই উপহার দেন। নতুন বই হাতে পেলে, তা না পড়া পর্যন্ত আমার ভালো লাগে না। এজন্য বই হাতে পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই আমি সময় বের করে তা পড়ে ফেলি। বই পড়ে আমি যে আনন্দ পাই, তা অন্য কিছুতে পাই না। তাই বই পড়া আমার আনন্দলাভের প্রধান উপলক্ষ্য।

সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য তোমাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করছি আমাদের এই পোস্ট থেকে অনুচ্ছেদ যেটি তুমি চাচ্ছিলে সেটি পেয়ে গিয়েছ। যদি তুমি আমাদেরকে কোন কিছু জানতে চাও বা এই অনুচ্ছেদ নিয়ে যদি তোমার কোনো মতামত থাকে, তাহলে সেটি আমাদের কমেন্টে জানাতে পারো। আজকের পোস্টে এই পর্যন্তই, তুমি আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে আমাদের বাকি পোস্ট গুলো দেখতে পারো।

See also  ভাবসম্প্রসারণঃ পথ পথিকের সৃষ্টি করে না, পথিকই পথের সৃষ্টি করে

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *